TwitterFacebook

স্বাধীনতা বিরোধীদের বিচার দাবি

Published/Broadcast by :
Date : Thursday, 17 December 2009
Author : সমকাল ডেস্ক
Language :
Entry Type : News, Uncategorized
Source : http://www.samakal.com.bd/details.php?news=16&action=main&menu_type=&option=single&news_id=34296&pub_no=191&type=
Content :


বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার রায় কার্যকর ও স্বাধীনতাবিরোধীদের বিচারের দাবি জানিয়ে বুধবার বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্যদিয়ে সারাদেশে মহান বিজয় দিবস উদযাপিত হয়। জেলায় জেলায় ৩১ বার তোপধ্বনির মধ্য দিয়ে দিবসটির সূচনা ঘটে। ভোরে সরকারি-বেসরকারি ভবনে উত্তোলন করা হয় জাতীয় পতাকা। শহীদ মিনার, মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিসৌধ, বিভিন্ন বধ্যভূমিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো ছাড়াও প্রশাসন, বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন। হাসপাতাল ও কারাগারে পরিবেশন করা হয় উন্নতমানের খাবার। আয়োজন করা হয় শোভাযাত্রা, আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :
বগুড়া : বগুড়া জেলা ও পুলিশ প্রশাসনের উদ্যোগে শহীদ মিনারে পুষ্পমাল্য অর্পণ, শহীদ চান্দু স্টেডিয়ামে কুচকাওয়াজ প্রদর্শন ও মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা দেওয়া হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক ইফতেখারুল আলম খান, পুলিশ সুপার হুমায়ুন কবির, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ মমতাজ উদ্দিন, পৌর মেয়র মাহবুবর রহমান প্রমুখ। জেলা আওয়ামী লীগ শহীদ মিনারে পুষ্পমাল্য অর্পণ ছাড়াও দলীয় কার্যালয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের উদ্যোগে শহীদ মিনারে পুষ্পমাল্য অর্পণ, দলীয় কার্যালয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ ছাড়া জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, জাতীয় পার্টি, জাসদ, কমিউনিস্ট পার্টিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠন শহীদ মিনারে পুষ্পমাল্য অর্পণ ও আলোচনা সভা করে। অন্যদিকে শহরের সাতমাথায় দিনবদলের মঞ্চের উদ্বোধন করা হয়। উদ্বোধন করেন ডাকসুর সাবেক ভিপি প্রফেসর মাহফুজা খানম। …
রংপুর : বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে শহীদ মিনারে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে। এরপর একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা শহর প্রদক্ষিণ করে ক্যাম্পাস মিলনায়তনে আলোচনা সভায় মিলিত হয়। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন উপাচার্য প্রফেসর ড. আবদুল জলিল মিয়া। অর্থনীতি বিভাগের প্রধান মোরশেদ হোসেনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন ড. মতিউর রহমান, ড. হাফিজুর রহমান সেলিম, প্রফেসর মোজাম্মেল হক, ড. সরিফা সালোয়া ডিনা, ড. তুহিন ওয়াদুদ, আপেল মাহমুদ প্রমুখ। শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।
পাবনা : স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শামসুল হক টুকু মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিসৌধ দুর্জয় পাবনায় পুষ্পমাল্য অর্পণের মধ্য দিয়ে দিবসের সূচনা করেন। পরে জেলা প্রশাসক ড. এ এ এম মনজুর কাদির, পুলিশ সুপার নিবাস চন্দ্র মাঝি, আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি, জেলা আইনজীবী সমিতি, পাবনা প্রেসক্লাব, স্কয়ারসহ বিভিন্ন সংগঠন ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায়। এ উপলক্ষে সকালে বাংলাদেশ হিউম্যান রাইটস ফাউন্ডেশন, পাবনা জেলা শাখা শহরে শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভার আয়োজন করে।
যশোর : সকালে বিজয়স্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন জেলা প্রশাসক মহিবুল হক, পুলিশ সুপার দিদার আহমেদ, জেলা পরিষদ, যশোর পৌরসভা, আওয়ামী লীগ, বিএনপি, এমএম কলেজ, সরকারি সিটি কলেজ, জাসদ, জাতীয় পার্টি, ওয়ার্কার্স পার্টি, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, উদীচী, আইডিইবিসহ বিভিন্ন সংগঠন ও প্রতিষ্ঠান। সকাল ৯টায় যশোর শামস-উল-হুদা স্টেডিয়ামে বেলুন ও কবুতর উড়িয়ে বিজয় দিবসের কুচকাওয়াজ, ডিসপ্লে ও শিশু-কিশোর সমাবেশের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক এবং পুলিশ সুপার। সকাল ১১টায় আওয়ামী লীগের উদ্যোগে টাউন হল ময়দান থেকে বের হয় বিজয় শোভাযাত্রা।
নওগাঁ : সকালে নওগাঁ স্টেডিয়ামে মুক্তিযোদ্ধা, আনসার-ভিডিপি, পুলিশ, রোভার স্কাউট, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্রছাত্রী ও বিভিন্ন সংগঠনের শিশু-কিশোরদের সমন্বয়ে কুচকাওয়াজ ও ডিসপ্লে অনুষ্ঠিত হয়। সকাল ১১টায় জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের উদ্যোগে বিশাল এক শোভাযাত্রা শহর প্রদক্ষিণ করে। শেষে পুরাতন ডিসি অফিস চত্বরে মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যদের সংবর্ধনা দেওয়া হয়।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ : স্থানীয় শহীদ সাটু হলে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্র্রেট সারোয়ার জাহানের সভাপতিত্বে বিজয় দিবসের আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসক কেএম আলী আজম, পুলিশ সুপার নজরুল হোসেন, মুক্তিযোদ্ধা ওমর আলী, আলাউদ্দীন, আবদুস সামাদ, জহরুল মাস্টার প্রমুখ।
খাগড়াছড়ি : সকালে স্টেডিয়ামে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আবদুল্লাহ ও পুলিশ সুপার আমির জাফর। এরপর কুচকাওয়াজে অংশ নেয় জেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্রছাত্রী, পুলিশ-আনসার-ভিডিপি সদস্য, স্কাউটসহ বিভিন্ন সংগঠন। সকালে চেঙ্গী স্কোয়ারে পৌর ছাত্রলীগ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে।
লালমনিরহাট : স্টেডিয়াম মাঠে কুচকাওয়াজ, শরীর চর্চা এবং ডিসপ্লে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে সালাম গ্রহণ করেন জেলা প্রশাসক আলাউদ্দিন ফকির। জেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট এবং জেলা আ’লীগ যৌথ আয়োজনে র‌্যালি বের করে।
বরগুনা : দুপুরে জেলা শিল্পকলা একাডেমীতে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের সদস্যদের সংবর্ধনা দেওয়া হয়। প্রধান অতিথি ছিলেন জাতীয় সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু। ফারিয়া লারা ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে মুক্তিযুদ্ধকালীন চিত্র প্রদর্শন এবং কুইজ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।
কুড়িগ্রাম : স্টেডিয়ামে বর্ণাঢ্য কুচকাওয়াজ এবং শারীরিক কসরত প্রদর্শন করা হয়। সন্ধ্যায় স্বাধীনতার বিজয়স্তম্ভে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য আহমেদ নাজমীন সুলতানা। দুপুরে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কার্যালয়ে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনায় জেলা প্রশাসক মোঃ আসাদুজ্জামান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া কাঁঠালবাড়ি ডিগ্রি কলেজ মাঠে দুই দিনব্যাপী বিজয় উৎসবের উদ্বোধন করা হয়।
নাটোর : জেলা প্রশাসন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, ‘৭১-এর ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি, আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন স্মৃতিসৌধে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করে। শংকর গোবিন্দ চৌধুরী স্টেডিয়ামে আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন এবং কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে সালাম গ্রহণ করেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী আহাদ আলী সরকার। উপজেলা প্রশাসন যুদ্ধাহত ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারকে সংবর্ধনা জানায়।
মাগুরা : নোমানী ময়দানে শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। স্থানীয় স্টেডিয়ামে পুলিশ, আনসার, ভিডিপিসহ বিভিন্ন স্কুল-কলেজের ছাত্রছাত্রীর সম্মিলিত কুচকাওয়াজ ও শরীর চর্চা প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়। কুজকাওয়াজে সালাম গ্রহণ করেন মাগুরার জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ দিলোয়ার বখ্ত। এছাড়া শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্য ও যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা, আলোচনা সভা, ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও উন্নতমানের খাবার বিতরণ করা হয়।
রাজবাড়ী : সকালে স্থানীয় স্টেডিয়ামে শিশু-কিশোরদের সমাবেশ ও কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও সালাম গ্রহণ করেন জেলা প্রশাসক ফয়েজ আহম্মদ। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সংসদ সদস্য কাজী কেরামত আলী।
চুয়াডাঙ্গা : সকালে ৯টায় চুয়াডাঙ্গা স্টেডিয়ামে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক ভোলানাথ দে ও পুলিশ সুপার আবদুল বাতেন।
পরে কুচকাওয়াজ এবং বিভিন্ন স্কুল-কলেজ ও প্রতিষ্ঠান ডিসপেল্গ প্রদর্শন করে। এছাড়াও জেলা বিএনপি ও জেলা আওয়ামী লীগ পৃথকভাবে বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দিবসটি পালন করে।
পিরোজপুর : সকালে জেলা স্টেডিয়ামে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, কুচকাওয়াজ ও ডিসপ্লে অনুষ্ঠিত হয়। দুপুরে জেলা প্রশাসকের বাসভবনে এবং পৌরসভায় পৃথকভাবে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবার ও মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা দেওয়া হয়।
মাদারীপুর : সকালে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতিফলকে পুষ্পমাল্য অর্পণ শেষে মাদারীপুর স্টেডিয়ামে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা দেওয়া হয়। এরপর বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে কুচকাওয়াজ প্রদর্শন করা হয়। বিজয় দিবসটি নানা অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে উদযাপন শেষে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
গাইবান্ধা : সকালে গাইবান্ধা শাহ আবদুল হামিদ স্টেডিয়াম মাঠে পতাকা উত্তোলন ও কুচকাওয়াজের মাধ্যমে কর্মসূচির শুভ সূচনা হয়। কুচকাওয়াজে ও শারীরিক কসরতে অংশ নেয় আনসার, পুলিশ, স্কাউট, রোভার্সসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, শিশু সংগঠন ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সদস্যরা। জেলা পরিষদ মিলনায়তনে মুক্তিযোদ্ধা সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মোঃ শহীদুল ইসলাম।
ভোলা : জেলা আওয়ামী লীগের বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। জেলা বিএনপি সকালে শহীদ মিনারে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করে। সহকারী শিক্ষক কল্যাণ সমিতির উদ্যোগে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
সুনামগঞ্জ : আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাপার বিবদমান দুই গ্রুপ পৃথক শোডাউন করেছে। জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল হুদা মুকুটের নেতৃত্বে জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আয়ুব বখত জগলুর নেতৃত্বে নেতাকর্মীরা পুরাতন কোর্ট কালেক্টরেট প্রাঙ্গণের স্মৃতিসৌধে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করে। জেলা বিএনপির সভাপতি ফজলুল হক আসপিয়ার নেতৃত্বে এবং সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা চেয়ারম্যান দেওয়ান জয়নুল জাকেরীনের নেতৃত্বে পৃথকভাবে স্মৃতিসৌধে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করা হয়। জেলা জাপা সভাপতি অ্যাডভোকেট আবদুল মজিদ পিপির নেতৃত্বে এবং মোহাম্মদ আলী খুশনুরের নেতৃত্বে দুই অংশ স্মৃতিসৌধে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করে। এর আগে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার স্মৃতিসৌধে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেন।
নীলফামারী : মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, পুলিশ প্রশাসন, আওয়ামী লীগ, বিএনপিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংস্থা ও সংগঠনের পক্ষ থেকে স্বাধীনতা অম্লান স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করা হয়। সকালে স্থানীয় স্টেডিয়ামে মুক্তিযোদ্ধারের সঙ্গে নিয়ে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন। বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, পুলিশ, আনসার, গার্লস গাইডের মার্চপাস্ট, শারীরিক কসরৎ প্রদর্শন, মুক্তিযোদ্ধাসহ শিশুদের ক্রীড়ানুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।
মৌলভীবাজার : স্থানীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন চিফ হুইপ উপাধ্যক্ষ আবদুস শহীদ এমপি, সৈয়দ মহসিন আলী এমপি, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, আ’লীগ, বিএনপি, জাসদ, সিপিবি, সরকারি কলেজ, মহিলা কলেজ, জিরানিয়াম স্কুল, শিল্পী সমাজসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।
জয়পুরহাট : শহীদ ডা. আবুল কাশেম ময়দানে স্মৃতিসৌধে সাংসদ মাহফুজা মণ্ডল রীনার পুষ্পার্ঘ্য অর্পণের পর জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সামাজিক সংগঠনের পক্ষ থেকে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করা হয়। সকালে জয়পুরহাট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হয় কুচকাওয়াজ, ডিসপেল্গ এবং পুরস্কার বিতরণ। দুপুরে মুক্তিযোদ্ধাদের পৌর কমিউনিটি সেন্টারে সংবর্ধনা দেওয়া হয়।
ঝিনাইদহ : সংসদ সদস্য মোঃ সফিকুল ইসলাম অপুসহ জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন, প্রেসক্লাব, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান স্থানীয় শহীদ মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতিসৌধে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করে। এরপর সকালে ঝিনাইদহ বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান স্টেডিয়ামে মার্চপাস্ট অনুষ্ঠিত হয়। মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, বিএনপি ও আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠন শহরে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করে। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা দেওয়া হয়।
পঞ্চগড় : সাংসদ মজাহারুল হক প্রধান শহীদ মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতিস্তম্ভে পূষ্পমাল্য অর্পণ করেন। এরপর জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপারসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ থেকেও পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়। সকালে পঞ্চগড় সিরাজুল ইসলাম স্টেডিয়াম পুলিশ, বিএনসিসি, আনসার ভিডিপি, ফায়ার সার্ভিস, রোভার স্কাউট, বয় স্কাউট, গাল গাইড, রেড ক্রিসেন্টসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্রছাত্রীর কুচকাওয়াজ ও জেলা প্রশাসক বনমালী ভৌমিক সালাম গ্রহণ করেন।
রাঙামাটি : সকাল ৯টার দিকে রাঙামাটি স্টেডিয়াম মাঠে কুচকাওয়াজের সালাম গ্রহণ করেন রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা। এ সময় জেলা প্রশাসক সৌরেন্দ্র নাথ চক্রবর্তী ও পুলিশ সুপার মাসুদ-উল-হাসান উপস্থিত ছিলেন। সকাল ১১টার দিকে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের উদ্যোগে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারবর্গের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এছাড়া জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বিকেলের দিকে পৌরসভা মিলনায়তনে এক আলোচনা সভা ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
ইবি : সকালে উপাচার্য অধ্যাপক ড. এম আলাউদ্দিন পতাকা উত্তোলন করেন। পরে সকাল ১১টায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলে উপাচার্য বঙ্গবন্ধু এবং বাংলাদেশের মানচিত্রের মুর‌্যাল (প্রতিকৃতি) উন্মোচন করেন। দুপুর ১টায় বিজয় দিবস উপলক্ষে শাহ আজিজুর রহমান মিলনায়তনে আলোচনা সভার আয়োজন করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।
শরীয়তপুর : সকালে শরীয়তপুর স্টেডিয়াম মাঠে কুচকাওয়াজ ও শরীরচর্চা প্রদর্শনী এবং ক্রীড়া অনুষ্ঠান হয়। দুপুর ১টায় জেলা প্রশাসক সম্মেলন কেন্দ্রে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা দেওয়া হয়।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া : সকালে জেলা প্রশাসক, পুলিশ প্রশাসন, পৌরসভা, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। স্থানীয় নিয়াজ স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত বিজয় দিবসের কুচকাওয়াজে সালাম গ্রহণ করেন জেলা প্রশাসক মোঃ হাইয়ূল কাইয়ুম। দুপুরে স্থানীয় ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ পৌর মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট লুৎফুল হাই সাচ্চু এমপি।
ফরিদপুর : সকালে জেলা প্রশাসন, জেলা আওয়ামী লীগ, বিএনপি, পুলিশ বিভাগ, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, সাহিত্য ও সংস্কৃতি উন্নয়ন সংস্থা, সচেতন নাগরিক কমিটি টিআইবি, সমকাল সুহৃদ সমাবেশ, হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ, এডাব অনুসংগঠনগুলো, সিপিবি, জাকের পার্টি, সিটি কলেজ, রাজেন্দ্র কলেজ, সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম, ভোরের পাখি, পুনাক, প্রয়াস, প্রথম আলো বন্ধু সভা, প্রশিকা, মউফসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন শহীদদের স্মৃতিস্তম্ভে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করে।
মেহেরপুর : স্টেডিয়ামে প্যারেডে সালাম গ্রহণ করেন জেলা প্রশাসক মোঃ জামালউদ্দিন আহমেদ। এছাড়াও বীর মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যদের সংবর্ধনা, প্রীতি ফুুটবল প্রতিযোগিতা ছাড়াও জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
এছাড়া রূপগঞ্জ, স্বরূপকাঠি, নাজিরপুর, মঠবাড়িয়া, ঈশ্বরদী, বানিয়াচং, পার্বতীপুর, শেরপুর (বগুড়া), ফুলপুর, সোনারগাঁ, ক্ষেতলাল, কাপ্তাই, রামগঞ্জ, আড়াইহাজার, রাউজান, হাতিয়া, কালিয়াকৈর, বকশীগঞ্জ, মীর্জাপুর, সদরপুর, নবীনগর, দেবীদ্বার, নবাবগঞ্জ, দাউদকান্দি, মিরসরাই, লৌহজং, নলছিটি, গৌরনদী, সাদুল্যাপুর, বটিয়াঘাটা, পাঁচবিবি, তাহিরপুর, উলিপুর, ফুলবাড়ী, গোয়ালন্দ, মুক্তাগাছা, মধুপুর, গফরগাঁও, বড়লেখা, বোয়ালমারী, বেনাপোল, বদরগঞ্জ, জিয়ানগর, তাড়াশ প্রতিনিধিরা বিজয় দিবস উদযাপনের খবর পাঠিয়েছেন।


Uploaded By : [icsf]
This item has been recorded here as part of ICSF's Media Archive Project which is a crowd sourced initiative run by volunteers, a not for profit undertaking to facilitate education and research. The objective of this project is to archive media items generated by different media outlets from around the world - specifically on 1971, and the justice process at the International Crimes Tribunal of Bangladesh. This archive also records items that contain information on commission, investigation and prosecution of international crimes around the world generally. Individuals or parties interested to use content recorded in this archive for purposes that may involve commercial gain or profit are strongly advised to directly contact the platform or institution where the content is originally sourced.

Facebook Comments

comments

Archive I: Media Archive

Archives news reports, opinions, editorials published in different media outlets from around the world on 1971, International Crimes Tribunal and the justice process.

Archive II: ICT Documentation

For the sake of ICT’s legacy this documentation project archives, and preserves proceeding-documents, e.g., judgments, orders, petitions, timelines.

Archive III: E-Library

Brings at fingertips academic materials in the areas of law, politics, and history to facilitate serious research on 1971, Bangladesh, ICT and international justice.

Archive IV: Memories

This archive records from memory the nine-month history of 1971 as experienced and perceived by individuals from all walks of life.

Partners

Website Sections

External Resources

Tools

About Us

Follow Us